Home / মোবাইল রিভিউ / LG G3 রিভিউ

LG G3 রিভিউ

LG নিয়ে এল তাদের নতুন Flagship ডিভাইন যা G2 এর পরবর্তী ভার্সন LG G3. এটি Galaxy S5, HTC One M8 এর সাথে ভালোই পাল্লা দিয়ে লড়ছে। ব্যাপক সাড়া জাগাতে পেরেছে এই ডিভাইসটি।

10425105_711383035612189_3914994167723496640_n

এর ডিজাইন, বিল্ট কোয়ালিটি এক কথায় অসাধারণ। প্লাস্টিক ম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করা হলেও এতে মেটাল ফিনিশ দেয়া হয়েছে যা এই ডিজাইনকে আরও আকর্ষিত করে তুলেছে। প্রতিবারের মতন এবার এর ভলিউম বাটন পিছনে।
10155180_711383235612169_5721085577179861008_n
এর কল কোয়ালিটি বেশ ভালো। কথা শুনতে বা অন্য পক্ষ্য থেকে আপনার কথা শুনতে কোন প্রকার সমস্যা হবে না। ৪জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে বিধায় এর কল কোয়ালিটিও বেশ উন্নত। তেমনি এর ইন্টারনেট স্পিড।

5.5” ডিসপ্লে হলেও এটি তেমন বড় নয় আকারে। LG যেদিক থেকে জায়গা কমানো যায় তার চেস্টা করেছে যেন ব্যবহারকারীরা বড় ফোন বলে না কেনার আগ্রহ দেখায় অথবা চালাতে অসুবিধা হয়। তবে এটি তেমন ছোটও নয়।
এই ফোনের Main Selling point হচ্ছে এর ডিসপ্লে। এর ডিসপ্লে কোয়ালিটি এক কথায় One of the Best Display in the market. 5.5” ডিসপ্লেতে ব্যবহিত হয়েছে True HD IPS technology. 1080p ডিসপ্লে তে রয়েছে 534 ppi Density! এক কথায় অসাধারণ এর ডিসপ্লে কোয়ালিটি। এতে কোন সন্দেহ নেই।
10603757_711383168945509_6895432423028640610_n

10387618_711383185612174_2382600629487780543_n
এতে রয়েছে ১৬ জিবি অথবা ৩২ জিবি Internal Memory যা গেমস, Apps ইন্সটল এর জন্য যথেস্ট। তবে যারা ফোনে অনেক মিউজিক, ভিডিও রাখতে পছন্দ করেন তাদের জন্য হয়ত যথেস্ট নাও হতে পারে। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। মাইক্রো এসডি কার্ড রয়েছেই। ১৬ জিবি মেমরী ভার্সনের সাথে পাবেন ২ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি ভার্সনের সাথে পাবেন ৩ জিবি র‍্যাম। এখানে LG কোন খুঁত রাখেনি। এখন আপনার দরকার অনুযায়ী ভার্সন বেছে নিতে পারবেন।

এর GPRS, EDGE পারফরম্যান্স অনেক ভালো। বেশ ভালো স্পিড পাওয়া যায়। ব্রাউজিং এ অথবা কোন কিছু ডাউনলোডে কোন সমস্যা হয় না। এর WIFI ও বেশ ভালো। ডুয়েল ব্যান্ড বলে বেশ ভালো ডাউনলোড স্পিড পাওয়া যায়। এতে কোন রকমের খুঁত পাওয়া যায়নি। এছাড়াও এটি OTG সাপোর্ট করে।

এর ক্যামেরা কোয়ালিটি এক কথায় অসাধারণ। দারুন ছবি তোলা যায় এর ক্যামেরা দিয়ে। তবে রাতের ছবির কোয়ালিটি তেমন একটা ভালো না হলেও একবারে যে খারাপ তা বলা যাবে না। 13MP Camera দিয়ে 4160 x 3120 pixel পর্যন্ত ছবি তোলা যায়। এর ভিডিও কোয়ালিটিও বেশ ভালো। 2160p @30fps এ রেকর্ড করা যায়। ছবিও উঠে খুব জলদি। কোন ল্যাগ বা দেরি হয় না। ক্যামেরা ফোকাস এর জন্য এতে রয়েছে লেজার ফোকাস। এটি ছবি তোলার সময় যা ছবি তুলছেন তা লেজার এর সাহায্যে দূরত্ব বের করে ফোকাস করে অটো। এবং তা করতেও বেশি সময় নেয় না। 1/3” sensor ব্যবহিত হয়েছে এই ফোনে যা বেশ ভালো ছবি তুলতে সাহায্য করে। এছাড়াও সামনের ক্যামেরার কোয়ালিটিও বেশ ভালো। 2.1MP ক্যামেরা দিয়ে বেশ ভালোই সেলফি তুলতে পারবেন।
10469889_711383268945499_1885039386983575225_n
এটিতে Android 4.4.2 or Android 4.4.4 Pre-Installed থাকবে। আর এতে ব্যবহিত হয়েছে LG Owned Custom Skin. বেশ ভালোই optimize করেছে তারা। আগের থেকে অনেক Improved এসেছে UI তে। আর এতে অনেক Customization করা যায়। ডুয়েল উইন্ডো, Copy Tray ইত্যাদি বেশ কিছু ফিউচার পাওয়া যাবে এতে।

এর Hardware Performance বেশ ভালো। এমন কোন গেমস নেই যা এতে চলবে না। অথবা চললেও ল্যাগ করবে। Qualcomm Snapdragon 801 with Quad Core 2.5GHz Krait 400 Processor & Andreno 330 GPU দারুন অভিজ্ঞতা এনে দিবে গেমসে। এর ভালো ডিসপ্লের জন্য গেমস খেলতেও বেশ ভালো অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে। মাল্টিটাস্কিং, Apps চালাতে কোন সমস্যাই হবে না।

এর ব্যাটারি ব্যাকআপ বেশ ভালো। মনে করেছিলাম 1080p Display + 5.5” এর কারনে ব্যাটারিতে এর প্রভাব পড়বে। কিন্তু এর ব্যাটারি পারফরম্যান্স দেখে আমি মুগ্ধ। টানা 4.5 hours Display on time ছিল এই ফোনে। জিপিএস, ক্যামেরা, মিউজিক কি ব্যবহার করিনি এই সময়ে! 3000mah ব্যাটারি বেশ ভালোই পারফর্ম করছে।

বর্তমানে এর দাম 16GB with 2GB Ram 45900/= & 32GB with 3GB Ram 49900/=
কিছু কম বেশি হতে পারে।

Conclusion:
LG আবারও প্রমান করেছে তারাও পারে Best Device মার্কেটে ছাড়তে। দাম অনুযায়ী এর পারফরম্যান্স অনেক ভালো। LG G2 আমাকে নিরাশ করলেও এটি করেনি। যদিও এখন এর থেকে বেটার চিপসেট আ ফোন এসেছে এরপরেও আমি এই ফোনকে ২০১৪ সালের বেস্ট ডিভাইসগুলোর মাঝে রাখব।

Mobile Update

About Ariyan Rana

আপনার মূল্যবান কমেন্ট করুন :)