Home / প্রতিবেদন / Samsung Galaxy S5 Mini সম্পর্কে কিছু

Samsung Galaxy S5 Mini সম্পর্কে কিছু

প্রায় দেখা যায় মোবাইল প্রস্তকারক কোম্পানি তাদের ফ্লাগশিপ সেটের মিনি ভার্সন বের করে ।। স্যামসাঙ’ও তাদের লেটেস্ট ফ্লাগশিপ সেট Galaxy S5’র মিনি ভার্সন বের করেছে ।।
তবে তাদের আগের মিনি ভার্সন সেটগুলো তেমন আকর্ষণীয় ছিলা না । কিন্তু Galaxy S5’র ক্ষেত্রে তা সম্পূর্ণ ভিন্ন । Samsung Galaxy S5 mini অবশ্যই আপনার
চাহিদা পূরণ করতে পারবে । তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক S5 miniর  বিস্তারিত কিছু কথা

Design & Build Quality: Galaxy S5র থেকে আকারে বেশ ছোট হলেও S5 mini কে অনেকটাই Samsung Galaxy S5র মত দেখায় ।
প্ল্যাস্টিক ব্যাককভার, মেটালিক ট্রিম ইত্যাদির কারনে ২টি সেটের মধ্যে পার্থক্য বের করা একটু কঠিন ।
তাদের কে আলাদা করে চিনার প্রধান উপায় হল S5র পানিরোধক আবরণ ।

Display: S5 mini তে আছে super AMOLED আর ৪.৫” মাপের ডিসপ্লে । যেখানে S5এর ডিসপ্লে ছিল ৫.১” ।
এটি ফুল এইচডি মানে ১২৮০*৭২০ পিক্সেল । পিক্সেল ঘনত্ব 332ppi । S5 আর S5 mini কে পাশাপাশি রাখলে দেখা যাবে S5র ডিসপ্লে
কিছুটা বেশি উজ্জ্বল ।

Special Features: মিনি ভার্সন সেট হিসেবে S5 miniর সব থেকে বড় সুবিধা হল এতে S5র সব স্পেশাল ফিচার অ্যাড করা হয়েছে । যেমনঃ ফিঙ্গার স্ক্যানার, হার্ট রেট মনিটর, ইনফ্রারেড সেন্সর,
পানি এবং ধূলারোধক । আর এই কারনে S5 mini কেও একটি ফ্লাগশিপ ডিভাইস বলা যায় ।

Software: Galaxy S5র TouchWiz ইন্টারফেস S5 mini তেও দেয়া হয়েছে । সুতরাং যারা TouchWiz পছন্দ করে তাদের আর এটি নিয়ে চিন্তার কিছু নেই ।
তবে দুঃখের বিষয় হল এতে air gesture, air browse, download bosster দেয়া নেই । যা আসলেই হতাশাজনক । তবে এইগুলো ছাড়া বাকি প্রায় সব সফটওয়্যার S5 mini তে আছে ।

Performance: একটি আন্ড্রোয়েড সেটের সব থেকে বড় দিক হল এর পারফরমেন্স । স্বাভাবিক কারনেই S5 থেকে S5 mini একটু কম শক্তিশালী ।
তারমানে এই না যে খুব স্লো । অনেকগুলো অ্যাপ একসাথে চালু রাখলেও এটি লেগ করে না এমনকি গেম মিনিমাইজ করে আবার চালু করলেও আটকিয়ে যায় না ।

Camera: অন্য মিনি ভার্সন সেটগুলোর সাথে তুলনা করলে দেখা যাবে S5 miniর ক্যামেরা অনেক ভালো । এর পিছন দিকে রয়েছে 8MP ক্যামেরা । ভিডিও কলিং ও সেলফি তুলার জন্য আছে 2.1 MP ফ্রন্ট ক্যামেরা । উভয়
ক্যামেরা দিয়ে 1080p ছবি তুলা যায় । আরও আছে HDP, panorama, face detection ।

Battery: এতে আছে 2100mAhর উচ্চ ক্ষমতার ব্যাটারি । যা দিয়ে আপনি টানা ৫-৬ ঘণ্টা গেম খেলা, ৮-৯ ঘণ্টা ব্রাউজিং করতে পারবেন ।

রেটিং : ১০’র মধ্যে ৮ নম্বর দেয়া যায় ।

ভালোদিকঃ
১) S5র মত একটি লুক
২) একি ফ্লাগশিপ সফটওয়্যার
৩) উন্নত ডিসপ্লে
৪) দারুন ক্যামেরা এবং ব্যাটারি

খারাপদিকঃ
১) S5 থেকে কিছুটা স্লো
২) দাম বেশি

Mobile Update

About সাহিদুল হাসান বিলাস

আপনার মূল্যবান কমেন্ট করুন :)