Home / টিউটোরিয়াল / আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইস এনক্রিপ্ট দ্বারা সুরক্ষিত করুন

আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইস এনক্রিপ্ট দ্বারা সুরক্ষিত করুন

এন্ড্রয়েড ডিভাইস গুলি ছোট আকৃতির একটি ডিভাইস যাকিনা আপনার পকেটে অনায়াসে রাখতে পারেন এবং যা আপনার ব্যাক্তিগত বা প্রফেশনাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দ্বারা সমৃদ্ধ থাকে। যেমন- ইমেইল, এসএমএস বার্তা, কন্টাক্ট নাম্বারস, ক্রেডিট কার্ড নম্বর, ফাইল, ফটো, ইত্যাদি। তাই নিশ্চয় আপনি কখনো আশাকরবেন না আপনার ডিভাইসটি কোন ভুল ব্যাক্তির হাতে পড়ুক। যা দুর্ঘটনা জনিত কারনে বা হারিয়ে যাওয়ার ফলেও হতে পারে।

এই সকল অপ্রীতিকর ঘটনা কেউই আশাকরেনা। এই জন্যেই আপনি আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসটি প্রতিরক্ষামূলক নিরাপত্তা ব্যবস্থার সংমিশ্রণে লক করে রাখতে পারেন।

তাই আজ এই বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করব- এনক্রিপশন কি, কিভাবে এটি কাজ করে, আপনি কিভাবে আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসটি এনক্রিপ্ট করতে পারেন ইত্যাদি।

What Is Encryption (এনক্রিপশন কি)?
এনক্রিপশন হল একটি scrambling প্রক্রিয়া যার দ্বারা তথ্য গুলিকে অবোধগম্য করে তোলা হয় সবার কাছে, এটি শুধু মাত্র তাদের কাছে বোধগম্য থাকে যারা unscramble প্রক্রিয়াটি জানেন। আর তথ্য গুলিকে পাঠযোগ্য বা স্বীকৃত ফরমের ফিরিয়ে আনার একমাত্র উপায় একটি কী ব্যবহার করে এটিকে ডিক্রিপ্ট করা।

public-key-secret-encrypt

এইক্ষেত্রে একটি উদাহরণ ব্যাবহার কারা যেতে পারে। মনেকরুন আপনি দৈনিক ডাইরি লিখেন (বাংলা ভাষায়), একদিন ঐ ডাইরিটি হারিয়ে গেল এবং ঘটনা ক্রমে ঐ ডাইরিটি একজন বাংলা ভাষী ব্যাক্তির হাতে পড়ল। তাহলে কি হবে? ঐ ব্যাক্তি ইচ্ছে করলেই আপনার সকল ব্যাক্তিগত তথ্য পড়তে ও বুঝতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি ঐ ডাইরিতে বাংলা ভাষা বা প্রচলিত অন্য ভাষা ব্যাবহার না করে গোপন সঙ্কেত বা ভাষা ব্যাবহার করতেন তাহলে ঐ ব্যাক্তির পক্ষে আপনার ডাইরিটি পড়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যেত, এমনকি আপনি যাদের নিয়ে লিখছেন তারাও বিষয়বস্তু গুলি কিছুই বুঝতে পারতনা ডাইরিটি হাতে নিয়ে।

HTEYAD1

ঠিক একই ভাবে এই উদাহরণটি আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসের ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করা যেতে পারে। ধরুন চোর আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসটি চুরি করল তখন সে আপনার ডিভাইসের তথ্যগুলির কিছু বুঝবে না যদি আপনার ডাটা গুলি এনক্রিপ্ট করা থাকে। সে তথ্যগুলি “হযবরল” হিসাবে দেখবে, যা তার কাছে আবর্জনা বা অনর্থক মনে হবে।

সংক্ষেপে বললে, এর দ্বারা আপনার তথ্য গুলিকে কপি বা অ্যাক্সেস থেকে অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যাক্তিকে প্রতিরোধ করা হবে।

How Does It Work? What Does It Do (কিভাবে এটি কাজ করে? এটা কী কাজ করে)?
এনক্রিপশনের আরও ব্যাখ্যা করার জন্য, চলুন “Android” শব্দটিকে এনক্রিপশন করি। এনক্রিপশনের জন্যে একটি পদ্ধতি ব্যাবহার করি, আর তা হল ইংরেজি বর্ণমালার প্রতিস্থাপন। এর দ্বারা বর্তমান বর্ণকে এর পরবর্তী দ্বিতীয় বর্ণ দ্বারা প্রতিস্থাপিত করা হবে। যেমন A প্রতিস্থাপিত হবে C দ্বারা, B প্রতিস্থাপিত হবে D দ্বারা। এই ভাবেই চলতে থাকবে। তাহলে এই পদ্ধতিতে যদি “Android” শব্দটিকে এনক্রিপশন করা হয় তাহলে দাড়ায় “Cpftqkf”। তাহলে এই শব্দটি থকে চোর কিছুই বুঝতে পারবেনা। তাকে জানতে হবে decode পদ্ধতি।

encryption_title

তবে, উদাহরণ হিসাবে যে পদ্ধতি ব্যাবহার করা হয়েছে তা খুব সরল এবং সহজে ভাঙ্গতে পারে যে কোন ব্যাক্তি। এই ধরনের সরল এনক্রিপশন পদ্ধতি এবং আলগোরিদিম, অবশ্যই ব্যবহার করা হয় না। সৌভাগ্যক্রমে, বর্তমান সময়ের প্রতিস্থাপন পদ্ধতি এবং আলগোরিদিম বেশ জটিল, এমনকি কম্পিউটার দ্বারা সমাধান করা খুব সহজ নয়।

ডিজিটাল ডাটা এনক্রিপশন বিভিন্ন আকার, আয়তন, এবং ধরনের আছে। আপনি ডিস্ক (যেমন, হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ, ইউএসবি ড্রাইভ, এসডি কার্ড), পৃথক ফাইল বা ফোল্ডার, নেটওয়ার্ক ট্রাফিক, ইমেইল, এবং ডাটাবেস এনক্রিপ্ট করতে পারেন। এটা অননুমোদিত মানুষ থেকে আপনার ডেটা “গোপন” অথবা “লুকিয়ে রাখার” একটি দুর্দান্ত উপায়।

সব এন্ড্রয়েড ব্যবহারকারী নিরাপত্তা অতিরিক্ত স্তর তাদের ডিভাইসে ব্যাবহারের প্রয়োজন বোধ না করলেও, আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসটি কিন্তু এনক্রিপ্ট করতে সখ্যম। এটা এন্ড্রয়েড এর সহজাত ক্ষমতা। কিন্তু, এনক্রিপশন কি আপনার জন্য এবং আসলেই কি আপনার প্রয়োজন এটা?

HTEYAD2

Why Do It At All (কেন করবেন)?
প্রধানত আপনি আপনার ডাটা সুরক্ষিত রাখতে এটি করবেন। প্যাটার্ন লক বা পাসওয়ার্ড দিয়ে বন্ধুদের থেকে আপনার ফাইল বা ডেটা এক্সেস নিরাপদ হতে পারে কিন্তু একটি বুদ্ধিমান চোরের কাছে এটি যথেষ্ট নাও হতে পারে। যদিও বলা হচ্ছে, তথ্য এনক্রিপ্ট করা থাকলে এক্সেস অসুবিধা বৃদ্ধি পাবে। কিন্তু কোন নিরাপত্তা পদ্ধতি বা সিস্টেম সম্পূর্ণরূপে কার্যকর নয়, তাই আপনি নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে সাহায্য করার জন্যে পদ্ধতির সংমিশ্রণ ঘটাতে বা ব্যবহার করতে পারেন।

HTEYAD3

আপনি ডেটা এনক্রিপ্ট না করার কারন হিসেবে বলতে পারেন ডিভাইসে তো প্যাটার্ন লক বা পাসওয়ার্ড দেওয়া আছে কিন্তু এটি আপনার ডেটা অ্যাক্সেস করা থেকে একটি বুদ্ধিমান চোরকে বিরত রাখার ক্ষেত্রে যথেষ্ট নাও হতে পারে। কারন অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যাক্তি ডিভাইসের রিকভারি মুডে গিয়ে ফ্যাক্টরি রিসেট দিয়ে এই সমস্যার সমাধান করে নিতে পারে এবং জ্ঞানসম্পন্ন চোর যাদের custom recoveries, boot loaders, Android Debug Bridge (ADB) সম্পর্কে ধারণা আছে তারা চাইলেই আপনার ডিভাইস থেকে তথ্য সংগ্রহ করতে পারে, যদিও আপানর ডিভাইসটি প্যাটার্ন লক বা পাসওয়ার্ড দিয়ে সুরক্ষিত!

জার্মান গবেষকরা একটি পদ্ধতি পেয়েছেন যা FROST (Forensic Recovery of Scrambled Telephones) নামে পরিচিত। যা দিয়ে পিন লক বা এনক্রিপ্ট করা ডেটা, এমন কি ঠাণ্ডায় জমে জাওয়া ডিভাইস থেকেও ডেটা উদ্ধারে সক্ষম।

HTEYAD4

দক্ষ তথ্য চোর সহজেই আপনার তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারে। কিন্তু এখনো, আপনার ডিভাইসের এনক্রিপ্ট তথ্য সবচেয়ে বুদ্ধিমান চোরের দ্বারাও এক্সেস করা কঠিন ব্যাপার। এক্ষেত্রে বুট লোডার লক ও নন-রুটেড ডিভাইস বাড়তি সুবিধা পায়।

Some Considerations (কিছু বিবেচ্য বিষয়)
আপনার এন্ড্রয়েড এনক্রিপ্ট করতে হবে কি না তা সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, নিম্নলিখিত নোটগুলি বিবেচনা করুন:

এনক্রিপ্ট ও ডিক্রিপ্ট করার প্রক্রিয়াটি একটি অতিরিক্ত চাপ যোগ করে এন্ড্রয়েড ডিভাইসের উপর, যা ডিভাইসের রিসোর্স ব্যবহার করে থাকে। যেহেতু এটি আপনার ডিভাইস এর কর্মক্ষমতা উপরে প্রভাব ফেলে তাই ডিভাইস ভেদে ল্যাগ করতে পারে। তুলনা মূলক কম প্রসেসর ধারি ডিভাইসের ক্ষেত্রে, ব্যবধান লক্ষণীয় হতে পারে। কিন্তু সাধারণত এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে ধীর গতি খুবি নগণ্য।

এনক্রিপ্ট করা তথ্য পরিমাণ উপর নির্ভর করে সময় কেমন লাগবে। প্রাথমিক এনক্রিপশন প্রক্রিয়া সাধারণত শেষ করতে এক ঘন্টা সময় নেয় বা তার বেশি। এটি নির্ভর করে ডেটার উপরে।

এনক্রিপশন প্রক্রিয়া চলাকালীন সময়ে বিঘ্নিত করা যাবেনা। এরকম করলে ডাটা স্থায়ী ক্ষতি হতে পারে।

এনক্রিপশন অপরিবর্তনীয়। আপনি এনক্রিপশন টগল বা বন্ধ করতে পারবেন না। এটি মুছে ফেলার জন্য একমাত্র উপায় ডিভাইস ফ্যাক্টরি রিসেট দেওয়া, যা আপনার ডিভাইসের সকল ডেটাও মুছে দিবে।

এনক্রিপ্ট এন্ড্রয়েড ডিভাইসে ব্যবহার জন্যে, আপনাকে একটি পাসওয়ার্ড বা পিন দিতে হবে যা আপনি ডিভাইস বুট করার সময় প্রতিবার দিতে হবে এবং এর পরে আপনি ডিভাইসে প্রবেশ করতে পারবেন।

আপনার ডিভাইস এনক্রিপ্ট করা হলে Pattern and swipe lock screens নিষ্ক্রিয় করা হবে।

আপনি বিদ্যমান একাধিক ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের সাথে এন্ড্রয়েড ট্যাবলেট এনক্রিপ্ট করতে পারবেন না। আপনি আপনার ট্যাবলেট এনক্রিপ্ট করার আগে প্রথম অতিরিক্ত অ্যাকাউন্ট গুলি মুছে দিন।

আপনি যদি উপরের বিষয় গুলির সাথে একমত হন তাহেল পরবর্তী ধাপ গুলিতে এগিয়ে যান আপনার ডিভাইস এনক্রিপ্ট করতে।

Encrypting Your Android (আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইস এনক্রিপ্ট করুন)
মেনুর অবস্থান ডিভাইস ভেদে আলাদা থাকে, তাই বিষয় টি মনেরাখা প্রয়োজন।

প্রথমত, আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য স্ক্রীন লক হিসাবে একটি পিন বা পাসওয়ার্ড সেট করুন।

HTEYAD5

সেটিংস মেনু থেকে পিন অথবা পাসওয়ার্ড সেট করার পরে Encrypt Phone or Encrypt Tablet নির্বাচন করুন। ডিভাইস ভেদে এনক্রিপশন মেনু ভিন্ন স্থানে হতে পারে. যেমন HTC One এ এটি Storage এর অধীনে আছে।

এনক্রিপশন মেনু নিচের স্ক্রীন শর্টের মত হবে:
HTEYAD8

এনক্রিপশনে কিছু সময় লাগবে, তাই আপনার ডিভাইসের ব্যাটারির ব্যাকআপ ক্ষমতা বিবেচনা করে সিধান্ত নিন। তবে চার্জে দিয়ে কাজ করা ভালো হবে।

HTEYAD9

সব ঠিক থাকলে ম্যানুর নীচে এনক্রিপ্ট ফোন বা এনক্রিপ্ট ট্যাবলেট বাটন চাপুন। আপনার ডিভাইসটি আপনার পিন বা পাসওয়ার্ড জন্য অনুরোধ জানাবে। আপনার পিন বা পাসওয়ার্ড লিখুন। আপনি একটি সতর্কতামূলক বার্তা দেখতে পাবেন। এনক্রিপশন প্রক্রিয়া শুরু করতে পুনরায় এনক্রিপ্ট ফোন বা এনক্রিপ্ট ট্যাবলেট বাটন চাপ দিন।

HTEYAD10

আপনার ডিভাইসটি পুনরায় বুট (রিস্টার্ট) হবে এবং এনক্রিপশন শুরু হবে। আপনি এনক্রিপশন প্রক্রিয়ার একটি অগ্রগতি সূচক দেখতে পাবেন।

এনক্রিপশন সম্পন্ন হলে, আপনার এন্ড্রয়েড ডিভাইস পুনরায় বুট করা হবে, এবং আপনার ফোন স্টোরেজ ডিক্রিপ্ট পাসওয়ার্ড টাইপ করার অনুরোধ জানানো হবে। আপনার পিন বা পাসওয়ার্ড টাইপ করুন। আপনার ডিভাইসে আপনার তথ্য ডিক্রিপ্ট হবে এবং এন্ড্রয়েড এ বুট হবে।

HTEYAD11

Security সাবমেনুর মধ্যে “Encrypt” কথাটি লিখা থাকবে অথবা বুট করার সময় আপনার ডিভাইস স্টোরেজ ডিক্রিপ্ট এর জন্যে আপনার পাসওয়ার্ড লিখতে অনুরোধ করবে। যদি এগুলির একটিও হয়ে থাকে তাহলে বুঝতে হবে আপনার ডিভাইসে এনক্রিপ্ট সম্পূর্ণ হয়েছে।

Encrypting External SD Card (এক্সটার্নাল এসডি কার্ড এনক্রিপ্ট করুন)
কিছু ডিভাইস (Galaxy S3, Galaxy S4) এসডি কার্ড এর ডেটা এনক্রিপ্ট করার অনুমতি দেয়।
সাধারণত আপনি আপনার এসডি কার্ড থেকে ফাইল নির্বাচন করতে পারেন এনক্রিপ্ট করা জন্যে। আপনি সম্পূর্ণ কার্ডটি অথবা নির্দিষ্ট ফাইল এনক্রিপ্ট করতে পারেন। সুতরাং, এই অর্থে বলা যায় আপনার এসডি কার্ড তথ্যের জন্যে বিভিন্ন এনক্রিপশন অপশন আছে।

HTEYAD12

এনক্রিপশনের পরে আপনার এসডি কার্ডের তথ্য অন্য ডিভাইসে ব্যবহার করা সম্ভব নয় যেখানে এনক্রিপশন ব্যাবহার করা হয়নি। কিছু ডিভাইস এই কার্ডটিকে ফাঁকা বা একটি অসমর্থিত ফাইল সিস্টেম হিসেবে চিহ্নিত করবে।

এসডি কার্ডের এনক্রিপশন আবার পূর্বাবস্থায় ফেরানো সম্ভব। এই পদক্ষেপ ডিভাইস বা ফার্মওয়্যার সংস্করণ উপর নির্ভর করে পৃথক হতে পারে।

এছাড়াও এইক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা আবশ্যক, কারন কিছু এন্ড্রয়েড ডিভাইস এনক্রিপ্ট বা ডিক্রিপ্ট পরিচালনা কালে ডিভাইসের সমস্ত বিদ্যমান কন্টেন্ট নিশ্চিহ্ন বা মুছে দেয়। তাই মাইক্রো এসডি কার্ড এনক্রিপ্ট বা ডিক্রিপ্ট করার সিদ্ধান্ত এর ক্ষেত্রে সতর্কতা পদক্ষেপ হিসেবে ব্যাকআপ নিয়ে রাখা ভালো হবে।

Encrypting Android Tablets with Multiple-User Accounts (একাধিক ইউজার অ্যাকাউন্ট দিয়ে এন্ড্রয়েড ট্যাবলেটে এনক্রিপ্ট করুন)

এইক্ষেত্রে নেক্সাস 7 এর অভিজ্ঞতা কিছুটা ভিন্ন, বর্তমান ব্যাবহারকারীদের বিদ্যমান রেখে এনক্রিপশন করা অসম্ভব। এটি ডিভাইস ভেদে অন্যান্য ডিভাইসেও হতে পারে। এই ক্ষেত্রে শুধুমাত্র প্রাথমিক ব্যাবহারকারী রেখে অন্য ব্যাবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে কাজ করতে হবে, অন্যথায় ডিভাইস রিবুট করতে থাকবে যখনি আপনি এনক্রিপশন করতে চেষ্টা করবেন।

HTEYAD13

এনক্রিপশন পর আপনি নতুন ব্যবহারকারী যুক্ত করতে পারবেন। তবে, শুধুমাত্র প্রধান/প্রাথমিক ব্যাবহারকারির পিন বা পাসওয়ার্ড ডিক্রিপ্ট কী হিসাবে ব্যবহার করা যায়/যাবে। প্রাথমিক ব্যবহারকারী Swipe অথবা Pattern lock ব্যাবহার করতে পারবেন না lockscreen জন্যে, কিন্তু অন্যান্য ব্যবহারকারিরা পারেবেন।

Encrypting through an Android App (অ্যাপ দ্বারা এনক্রিপ্ট করুন)
এন্ড্রয়েড এর নিজস্ব এনক্রিপশন পদ্ধতি ডিভাইসের সম্পূর্ণ অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ জন্য হয়েথাকে, কিন্তু যদি আপনি চান কিছু নির্দিষ্ট ফাইল, ফোল্ডার এবং ডিরেক্টরি এনক্রিপ্ট করতে; তখন কি করবেন?

এই জন্যেই এনক্রিপশন এপ্লিকেশনগুলি তৈরি করাহয়। এনক্রিপশন অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে, আপনি সম্পূর্ণ ডিস্কের বদলে আপনার পছন্দের ফাইল কে এনক্রিপ্ট করতে পারবেন। এমনকি আপনি স্থায়ীভাবে আপনার ডিভাইস ডেটা wipe না করেও আপনার এনক্রিপ্ট হওয়া ডেটা ডিক্রিপ্ট করতে পারবেন।

গুগল প্লে-স্টোরে এই সংক্রান্ত অনেক অ্যাপ আছে, তার মধ্যে ২টি অ্যাপ নিয়ে আজ বলব। একটি SSE – Universal Encryption App এবং অন্যটি Encryption Manager

SSE – Universal Encryption App
এটি দিয়ে এনক্রিপ্ট করা এন্ড্রয়েড ডিভাইসের ফাইল ডিক্রিপ্ট করা যায় এবং একটি সহজ এনক্রিপশনের অ্যাপ্লিকেশন।

Encryption Manager
আপনার ডিভাইসে ব্যবহার করতে পারেন আরেকটি এনক্রিপশন ও ডিক্রিপশন অ্যাপ্লিকেশন, যার নাম এনক্রিপশন ম্যানেজার। এর একটি পেইড ও একটি ফ্রী ভার্সন আছে।

এই অ্যাপ গুলির ব্যাবহার বিধি প্লে-স্টোরে অ্যাপের Description এ পাবেন, তাই আর লিখলাম না।

মন্তব্য-
বর্তমান সময়ের এন্ড্রয়েড ডিভাইস গুলি যে পরিমাণ ব্যাক্তিগত তথ্য বহন করে, এবং এগুলি যদি অবাঞ্ছিত মানুষের হাতে যায় ও এর মিসইউজ হয়, তাহলে হয়তো জীবনের অর্থই পাল্টে যাবে। তাই আপনার ডিভাইসটি সুরক্ষিত করার প্রয়োজন। আর এনক্রিপশন আপনার ডিভাইসের ডিজিটাল তথ্যের জন্যে সুরক্ষিত একটি নির্ভরযোগ্য উপায়।

যদিও এনক্রিপশন আপনার সংবেদনশীল তথ্যের পূর্ণ সুরক্ষা দিতে পারবে না, কিন্তু তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় সাহায্য করবে।
 

 
তথ্য সূত্র-
kb.wisc, security.stackexchange, howtogeek, readwrite, searchsecurity.techtarget, mach & FROST.

 

 

Mobile Update

About Md ALAMGIR

প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান অগ্রগতির সাথে তাল মিলিয়ে নিজের ক্ষুদ্র জ্ঞান সকল বাংলা ভাষা-ভাষীর মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার প্রচেষ্টা মাত্র।
আপনার মূল্যবান কমেন্ট করুন :)