Home / টিপস ও ট্রিক্স / অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ওয়াই ফাই সুরক্ষিতভাবে চালানোর উপায়

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ওয়াই ফাই সুরক্ষিতভাবে চালানোর উপায়

কোনো অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে যে পরিমাণ তথ্য রাখা হয় সেই তুলনায় তেমন এন্টিভাইরাস নেই। যদি কোনো অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ওয়াই ফাই থাকে এবং ব্যবহারকারী যদি না জেনে কোনো অনিরাপদ ওয়াই ফাই হস্পট এর মাধ্যমে ইন্টারনেট চালু করে তবে চিন্তা সবচেয়ে বেশি। ওয়াই ফাই এর মাধ্যমে ডিভাইসে আসা ভাইরাসের জন্য মোবাইল কোম্পানীগুলোর কিছু করার থাকে না।

বেশিরভাগ ওয়াই ফাই হস্পটগুলো এনক্রীপ্ট নয়। যার ফলে ওয়াই ফাই হস্পটের সীমার মধ্যে যারা থাকবে তারা অন্যের পাঠানো ও গ্রহন করা তথ্য সহজেই হ্যাক করতে পারবে। পার্সোনাল কম্পিউটার এ ওয়াই ফাই রাউটার এবং ল্যাপটপ এ ওয়াই ফাই হস্পট ব্যবহার করে ইন্টারনেট চালানোর সময় যদি এনক্রীপ্ট করা না থাকে তবে একই সমস্যা হয়। ওয়াই ফাই হস্পট এ হ্যাক করা আশ্চর্যজনক কোনো বিজ্ঞান নয়। ওয়াই ফাই হস্পট এ হ্যাক করা শুধুমাত্র কিছু সফটওয়্যার এবং কিছু সময়ের ব্যাপার। এ ধরনের অনেক সফটওয়্যার আছে যা কিনা সহজেই পাঠানো ও গ্রহন করা তথ্য ধরতে পারে। কিছু সফটওয়্যার আছে যা সম্পূর্ণ তথ্য দিতে পারে না। বাকী গুলো সম্পূর্ণ তথ্যই দিতে পারে তাও আবার খুব দ্রুত এবং সহজেই । এর ফলে ব্যবহারকারীর ব্যাংকের তথ্যও নিয়ে জেতে পারে হ্যাকাররা।

  • ভাইরাস দমনের উপায়ঃ

ভাইরাস দমনের ক্ষেত্রে প্রথম কথা হলো আগে নিশ্চিত করতে হবে যে ব্যবহারকারী যে ওয়েব সাইটে ঢুকছে তা এসএসএল এনক্রীপ্ট করা। যদি কোনো ওয়েব সাইট সুরক্ষিত হয় তবে তা https:// দ্বারা শুরু হবে। সেই সাথে ব্যবহারকারী ওয়েব সাইট এ একটি প্যাড লক দেখতে পাবে বা অন্য কোনো নির্দেশক দেখতে পাবে। জনপ্রিয় ওয়েব সাইট গুলোতে (যেমনঃ ফেসবুক, টুইটার, গুগল ) এসএসএল এনক্রিপ্ট এর গুরুত্ত দেয়া হয় না।

  • ওয়াই ফাই এর সাথে সাথে ডাটা প্ল্যান ব্যবহার করাঃ

যখন ব্যবহারকারী থ্রীজি বা ফোরজি ব্যবহার করে তখন তার তথ্য গুলো নিরাপদ। কারন এক মোবাইল টাওয়ার থেকে অন্য টাওয়ারে এনক্রীপ্ট ব্যবহার করা হয়।

ওয়াই ফাই এনক্রীপ্ট হলো ডিভাইস সুরক্ষিত রাখার একমাত্র রাস্তা। তাই ওয়াই ফাই এ HTTPS/SSL ব্যবহার করা উচিত।

 

Mobile Update

About Itz Sangit

আপনার মূল্যবান কমেন্ট করুন :)